শোকজ করে লাভ নেই,নন্দীগ্রামের মুসলিমদের পাকিস্তানি বলার সময় কোথায় ছিলেন?কমিশনকে কড়া জবাব মমতার

নিউজ ডেস্ক : নিজের চিরপরিচিত ভঙ্গিতে এবার নির্বাচন কমিশনকে জবাব দিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন আমাকে শোকজ করে লাভ নেই প্রত্যেকবার একই জবাব দেব। যারা নন্দীগ্রামের মুসলিমদেরকে পাকিস্তানি বলে তাদের বিরুদ্ধে কটা অভিযোগ হয়েছে? তৃণমূলের বিরুদ্ধেই যত অভিযোগ কমিশনের বলেও উল্লেখ করেন তিনি। এই ভাবেই নির্বাচন কমিশনকে দ্বিচারিতার অভিযোগে বিদ্ধ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

 

হাওড়ায় বৃহস্পতিবার মমতা গিয়েছিলেন নির্বাচনী প্রচারে। ডোমজুড়ের সেই সভা থেকে তিনি বলেন, ‘‘আমাকে ১০ বার শো-কজ করেও লাভ নেই। একই জবাব দেব।’’ কমিশনের অভিযোগ প্রসঙ্গে পাল্টা মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘নন্দীগ্রামে মুসলিমদের যাঁরা পাকিস্তানি বলেছিলেন, তাঁদের বিরুদ্ধে ক’টা অভিযোগ হয়েছে? খালি তৃণমূলের বিরুদ্ধে সব অভিযোগ?’’ বুধবার নোটিস পাঠিয়ে কমিশন মমতাকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করতে বলেছিল। নচেৎ কমিশন কড়া পদক্ষেপ করতে পারে বলেও জানানো হয়। বৃহস্পতিবার মমতা পাল্টা হুঁশিয়ারিই দিয়েছেন কমিশনকে। তবে তাঁর তরফে লিখিত কোনও জবাব কমিশনে পৌঁছেছে কি না তা জানা যায়নি।

 

 

উল্লেখ্য তারকেশ্বরের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আই এস এফ এর নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ব্যাপারে মুসলিমদের উদ্দেশ্যে বলেছিলেন বিজেপি আসলে সব থেকে বেশি বিপদে আপনারাই পড়বেন তাই মুসলিম ভোট ভাগ হতে দেবেন না। এই বিষয়টি নিয়ে কোচবিহারে জনসভা থেকে মোদি বলেছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মুসলিমদের এক হতে বলছেন, একই কথা আমি হিন্দুদের বললে আমার কাছে নোটিশ পাঠানো হত। যদিও গত লোকসভা নির্বাচন থেকে তার পরবর্তী বিভিন্ন বিধানসভা নির্বাচন এবং বর্তমানে বাংলায় সাধারণ নির্বাচনে হিন্দু-মুসলিম বিভাজনের রাজনীতির করতে পছন্দ করেন মোদি সহ তার দলের সব নেতারা। কিন্তু এখনও পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী মোদির বিরুদ্ধে সদর্থক কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা যায়নি নির্বাচন কমিশনকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *