জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে বাংলাদেশকে হারিয়েছে ভূত!

নিউজ ডেস্ক : ক্রিকেট বিশ্বের সব থেকে দুর্বল নিয়মিত ক্রিকেট খেলা দল জিম্বাবোয়ে। তাদের বিরুদ্ধে ওডিআই এবং টি টোয়েন্টি খেলতে দেশটির সফরে গিয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেট দল। অতি দুর্বল প্রতিপক্ষ জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে ওডিআই সিরিজ সহজে জিতে যায় বাংলাদেশ। টি টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ জিতলেও দ্বিতীয় ম্যাচে হেরে যায় শাকিব আল হাসানরা। শুরু হয় প্রবল সমালোচনা। বাংলাদেশী ক্রিকেট অনুগামীরা হতাশ হয়ে বলতে থাকেন,এত বছর ক্রিকেট খেললেও শীর্ষ দলগুলোর বিরুদ্ধে জয়ের দেখা খুব কমই মেলে বাংলাদেশের। যা কিছু মেলে তাও শুধু মিরিপুরে। একটা দেশের বিরুদ্ধে নিয়মিত জিতে দর্শকদের মন জয় করে টাইগাররা। কিন্তু সেই জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধেও হার?! ভক্তদের এমন হতাশা অবশ্য একটু প্রশমিত হল আজ। বাংলাদেশ তৃতীয় ম্যাচ জিতে টি টোয়েন্টি সিরিজ নিজেদের পকেটে পুরে নিল। এরই মাঝে বাংলাদেশের মিডিয়ায় খবর, দ্বিতীয় টি টোয়েন্টি ম্যাচে বাংলাদেশের হারের পিছনে নাকি হাত আছে ভুতের!

 

জিম্বাবুয়ে সফরে বাংলাদেশ একটিমাত্র ম্যাচে হেরেছে। সেটি হলো টি-২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচ। তখন ম্যাচ চলছে।দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেছিল বাংলাদেশ। ১৮তম ওভারে বল করছিলেন জিম্বাবেুয়ের টেন্ডাই চাতারা। মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন স্ট্রাইক নিচ্ছিলেন। বল ডেলিভারি হওয়ার আগেই দেখা যায়, নিজে নিজে স্ট্যাম্প পড়ে গিয়েছে।

 

 

হারারের মাঠে ভুতুড়ে কাণ্ড! বাংলাদেশ বনাম জিম্বাবুয়ে ম্যাচে ঘটে গেল ভুতুড়ে কারবার। জিম্বাবুয়ের হয়ে খেলতে নেমেছিল এক ভূত। যে আবার বাংলাদেশের স্ট্যাম্পও ফেলে দিলো। এমন কাণ্ডে হতবাক ক্রিকেট বিশ্ব! বাংলাদেশকে আউট করতে শেষ পর্যন্ত ভূতের সাহায্য নিলো জিম্বাবুয়ে?

 

 

বাংলাদেশ-জিম্বাবয়ের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ চলছিল। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমেছিল বাংলাদেশ। ১৮তম ওভারে ঘটনাটি ঘটে। সেই ওভারে বল করছিলেন জিম্বাবোয়ের টেন্ডাই চাতারা। মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন স্ট্রাইক নিচ্ছিলেন। বল ডেলিভারি হওয়ার আগেই দেখা যায়, নিজে নিজে স্ট্যাম্প পড়ে গিয়েছে। এক্কেবারে ভুতুড়ে কাণ্ড!

 

 

জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটাররা হিট উইকেট হয়েছে ভেবে আম্পায়ারের কাছে অ্যাপিল করেন। আম্পায়ার থার্ড আম্পায়ারের সাহায্য নেন। থার্ড আম্পায়ার নট আউট দেন। সম্ভবত হাওয়াতেই বেল পড়ে গিয়েছিল। তবে মজা করে অনেকেরই দাবি, এ কাণ্ড ভূতেরই! তা না হলে এমনটি কেন হবে?

 

সূত্র : নয়া দিগন্ত

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *