১০ বছরের জেল হতে পারে ট্রাম্পের!

মার্কিন কংগ্রেসের অধিবেশন চলার সময় ট্রাম্প সমর্থকরা যে হামরা চালিয়েচিলে তার জেরে ট্রাম্পের ১০ বছরের জেল হতে পারে। এমন সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। যদিও এর আগে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে রিপাবলিকান দলের নেতাদের বিচারে পার পেয়ে গেছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে আদালতের বিচারে কংগ্রেস ভবনে হামলায় ভূমিকা থাকার বিষয়টি প্রমাণিত হলে ট্রাম্পের ১০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে।

রবিবার জার্মান বার্তা সংস্থা ডিপিএ এক বিশ্লেষণে লিখেছে, ক্যাপিটল হিলে হামলা চালাতে নিজের হাজার হাজার সমর্থককে উসকানি দেওয়ার দায়ে আমেরিকার আদালতে ট্রাম্পের বিচার শুরু হতে পারে। সিনেটে তাকে অভিশংসন করতে ব্যর্থ হওয়ার পর ট্রাম্পের বিরোধীরা হাত গুটিয়ে বসে নেই। তারা ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনা নিয়ে আদালতে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।

ডিপিএ’র বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, সিনেটে অভিশংসন প্রস্তাবে রিপাবলিকান নেতা মিচ ম্যাককোনেলসহ ৪৩ সিনেটের ট্রাম্পের পক্ষে ভোট দিলেও ম্যাককোনেল নিজে স্পষ্ট করে বলেছেন, ট্রাম্পের অভিশংসন না হওয়ার অর্থ তার নিরপরাধ থাকার প্রমাণ নয়।

তার এ বক্তব্য থেকে বোঝা যায়, ট্রাম্প যে তার সমর্থকদের কংগ্রেস ভবনে হামলা চালাতে উসকানি দিয়েছিলেন সে বিষয়টি ম্যাককোনেল মেনে নিয়েছেন।জার্মান এই বার্তা সংস্থাটি আরও লিখেছে, কাজেই মার্কিন আদালতে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ফৌজদারি অভিযোগ আনা হলে তার কঠোর শাস্তি হতে পারে। মার্কিন আইনে বিদ্রোহ উসকে দেওয়ার শাস্তি ১০ বছরের কারাদণ্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *