বাদশাহ আওরঙ্গজেবের স্মৃতি বিজড়িত আওরঙ্গবাদ হবে শম্ভুজি নগর! রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব তুঙ্গে, কোন দিকে শিব সেনা?

সাইফুল্লা লস্কর : ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাসে অন্যতম শ্রেষ্ঠ শাসক জিন্দাপীর নামে খ্যাত বাদশা আলমগীর আওরঙ্গজেবের স্মৃতিবিজড়িত মহারাষ্ট্রের আওরঙ্গবাদ শহরের নাম পরিবর্তন করে শম্বুজি নগর করা হোক। না, এ দাবি আসলে বিজেপির নয় শিবসেনার মস্তিষ্কপ্রসূত। শিবসেনা নেতৃত্ব ১৯৮৮ সালের পর থেকে আওরঙ্গবাদকে শম্ভুজি নগর নামে ডাকে। তাদের দলীয় মুখপাত্র সামনাতেও একই নাম ব্যাবহার করা হয় অরঙ্গাবাদ এর জন্য। কিন্তু এবারে ক্ষমতা পেয়েও নিরব কেন শিবসেনা, খোঁচা মহারাষ্ট্র বিজেপির। শিবাজী শম্ভুজি কে যদি সত্যিই ভালোবাসে তাহলে নিজেদের আদর্শ বাল ঠাকরের দেওয়া প্রতিশ্রুতি পূরণ করে শম্ভুজি নগর নাম রাখুক। তবে তুলনামূলক বিপরীত চিন্তাধারার রাজনৈতিক দল জাতীয় কংগ্রেস এবং এনসিপির সঙ্গে জোটে সরকার গঠন করা শিবসেনা এখন চাইলেও কিছু করতে পারছে না এ ব্যাপারে। যদিও তারা বলছে তারা এই নাম পরিবর্তনের পক্ষে রয়েছি। তবে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরে অন্য এক চালে বিজেপিকে বেকায়দায় ফেলার জন্য অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী হরদীপ সিং কে চিঠি লিখে অরঙ্গাবাদ এর বিমানবন্দরের নাম শম্ভুজী মহারাজ বিমানবন্দর করার অনুরোধ করেছেন।

আওরঙ্গবাদ এর ইতিহাস :

মহারাষ্ট্রের প্রায় কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত মারাঠাওয়ারা অঞ্চলে স্থিত আওরঙ্গবাদ ঐতিহাসিকভাবে মহারাষ্ট্রের তথা ভারতবর্ষের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ শহর। এরই আশেপাশে প্রায় ২০০০ বছর ধরে উথান এবং পতন হয়েছে সাতবাহন, যাদব, মারাঠা, নিজাম সহ বিভিন্ন রাজ শক্তির। সুলতান মুহাম্মদ বিন তুঘলক ১৩২৭ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১৩৩৪ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত যে দৌলতাবাদে রাজধানী স্থানান্তরিত করে রেখেছিলেন তা এই আওরঙ্গবাদ এর খুবই নিকটে। ১৬১০ খ্রিস্টাব্দে ইথিওপিয়ার এক ভৃত্য মালিক অম্বর এর হাতে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল আওরঙ্গবাদ শহর। তখন তার নাম ছিল খিড়কি। ১৬৩৩ খ্রিস্টাব্দে বাদশা শাহজাহান এটিকে মুঘল সাম্রাজ্যের অন্তর্ভুক্ত করেন। আবার ১৬৫৩ খ্রিস্টাব্দে বাদশা আলমগীর আওরঙ্গজেব শহরটির নাম রাখেন আওরঙ্গবাদ। পরবর্তীতে জীবনের প্রায় ২৭ বছর এই শহর এবং তার আশেপাশের অঞ্চলে কাটানো বাদশা আলমগীর নিজের স্ত্রীর সমাধি, বিবি কা মাকবারা তৈরি করেছিলেন এই শহরে।

মহারাষ্ট্রে মোগল বাদশাহ ওরঙ্গজেবের আমলে শিবাজীর পুত্র শম্ভুজীকে সম্রাজ্যের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ এবং ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ১৬৮৭ সালে গ্রেফতার করে বহুদিন অরঙ্গাবাদ শহরে রাখা হয়। সেখানেই তার মৃত্যু হয় ১৬৯৯ খ্রিস্টাব্দে। সেই কারণেই শিবসেনার কাছে অরঙ্গাবাদ শম্ভুজী নামের দাবিদার।

১৯৫৬ খ্রিস্টাব্দে পর্যন্ত হায়দ্রাবাদ রাজ্যের অধীনে থাকা আওরঙ্গবাদ শহরটি পরবর্তীতে মহারাষ্ট্রের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। প্রাথমিকভাবে মুম্বাই কেন্দ্রিক রাজনৈতিক দল শিবসেনা হাজার ১৯৮৮ খ্রিস্টাব্দে অরঙ্গাবাদ পৌর নির্বাচনে জয়লাভ করে প্রতিশ্রুতি দেয় এই শহরের নাম বদলে দেওয়ার। ১৯৯৬ খ্রিস্টাব্দে শিবসেনা বিজেপি জোট সরকার ক্ষমতায় ছিল মহারাষ্ট্রে। মুখ্যমন্ত্রী মানোহার যশি বিজ্ঞপ্তি জারি করেন শহরটির নাম পরিবর্তন করে শম্ভুজি নগর করার জন্য। কিন্তু তৎকালীন কংগ্রেস নেতা মোস্তাক আহমেদ মামলা করেন এই নাম পরিবর্তনের বিরুদ্ধে। হাইকোর্ট মামলার ভিত্তিতে ঐতিহাসিক এই শহরের ঐতিহাসিক গুরুত্ব বিবেচনা করে নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত স্থগিত রাখতে নির্দেশ দেয়। তখন থেকেই এই নাম পরিবর্তনের বিষয়টি মাঝে মাঝে নির্বাচনের সময় শিরোনামে আসলেও আসলে কোনও অগ্রগতি লাভ করতে পারেনি।

বর্তমান প্রেক্ষাপট এবং রাজনৈতিক দলগুলোর অবস্থান :

অরঙ্গাবাদ, নাভি মুম্বাই শহর সহ মহারাষ্ট্রের বেশ কিছু বৃহৎ শহরের পৌর নির্বাচন আসন্ন। আগামী ১৫ ই জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে চলেছে মহারাষ্ট্রের গ্রাম পঞ্চায়েত নির্বাচন। এই পরিস্থিতিতে কেউই এই বিতর্কিত বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে চায় না শুধু বিজেপি ছাড়া।

অরঙ্গাবাদ শহরে প্রায় ৫০ শতাংশ হিন্দু এবং ৩০ শতাংশের বেশি মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের বসবাস। স্বাভাবিকভাবেই মুসলিম ও ভোটের এক গুরুত্বপূর্ণ অবদান থাকে এখানকার রাজনৈতিক গতিবিধি নির্ধারণে। গত লোকসভা নির্বাচনে অরঙ্গাবাদ থেকে জয়লাভ করেন অল ইন্ডিয়া মজলিসে ইত্তেহাদুল মুসলিমিন এর প্রার্থী ইমতিয়াজ জলিল। তাই এখানে মিম পার্টির রাজনৈতিক প্রভাব বিদ্যমান থাকায় এমন বিতর্কিত বিষয় শিবসেনা বা কংগ্রেস অগ্রসর হওয়ার চেষ্টা করলে সরাসরি লাভ মিম এবং বিজেপির হবে।

কংগ্রেস, এনসিপি এবং শিব সেনার এম ভি এ নামক জোট বর্তমান সময়ে মহারাষ্ট্রে সরকার চালাচ্ছে। শিবসেনা এই নাম পরিবর্তনের স্বপক্ষে থাকলেও কংগ্রেস এবং এনসিপির সরাসরি বিরোধিতার কারণে নীরব রয়েছে।

এনসিপির তরফ থেকে জানানো হয়েছে তারা রাজ্যে তিন দলীয় জোটকে আরো শক্তিশালী করতে চান। এমন কোন ঘটনা বা বিতর্কিত বিষয় কে তারা সমর্থন করবেন না যা এই জোটকে দুর্বল করতে পারে।

কংগ্রেস বিষয়টিকে স্পর্শ কাতর হিসাবে আখ্যা করে এ ব্যাপারে নিজেদের নিরপেক্ষ অবস্থান নিশ্চিত করেছে।

বিজেপি বারবার এই অঞ্চলের নাম পরিবর্তনের কথা শিবসেনা কে খোঁচা দেওয়ার জন্য এবং হিন্দুত্ববাদী ভোটব্যাঙ্ক নিজেদের পক্ষে টানার জন্য ব্যবহার করে বলে রাজনৈতিক মহল মনে করে। কিন্তু বিজেপির মহারাষ্ট্রে অন্যতম বৃহৎ শরিকদল রিপাবলিকান পার্টির তরফ থেকে জানানো হয়েছে অরঙ্গাবাদ এর নাম পরিবর্তনের বিষয়টি তারা কোনো অবস্থাতেই মেনে নেবে না।

এই পরিস্থিতিতে শিবসেনা চাইলেও এবং কংগ্রেস এবং এনসিপির বিরোধিতার কারণে ও অরঙ্গাবাদ অঞ্চলে মিমের রাজনৈতিক প্রভাবের জন্য এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা প্রায় অসম্ভব বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল। বিজেপি বিষয়টিকে মাঝে মাঝে তুললেও তাদের শরিক দল এর বিপক্ষে থাকায় তারাও খুব বেশি এগোতে পারছে না। তাই আপাতত অরঙ্গাবাদ শম্ভুজিনগর হওয়ার হাত থেকে বেঁচে গেল বলেই মনে হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *