ভাঙছে ত্রিপুরা বিজেপি? মুকুলের পথ ধরে তৃণমূলে আসতে পারেন ত্রিপুরা বিজেপির প্রভাবশালী নেতা সুদীপ রায়

নিউজ ডেস্ক :‌ মুকুল রায় বিজেপি ছেড়ে যোগ দিয়েছেন নিজের পুরনো দল তৃণমূলে। এবার তার হাত ধরে সামনের দিনগুলোতে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিতে পারেন বহু বিজেপি নেতা। তবে বহুদিন বিজেপির গুরত্বপূর্ণ সর্বভারতীয় পদ সামলানো মুকুল রায় বাইরের রাজ্যের বহু বিজেপি নেতাকে ভাঙিয়ে তৃণমূলে নিয়ে আসতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে।

তিনি বাংলার পর ত্রিপুরাতেও ভাঙন ধরতে পারে বিজেপি–তে। শোনা যাচ্ছে বিজেপি ছাড়তে পারেন মুকুল ঘনিষ্ঠ সুদীপ রায় বর্মন।

বলাই বাহুল্য, সুদীপ একা যাবেন না। তাঁর ঘনিষ্ঠ বিজেপি বিধায়করাও দল ছাড়তে পারেন। এই দলত্যাগ হলে, তার কারণ হবেন ত্রিপুরার বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। সুদীপ বাবুর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের খোটাখুটি সুবিদিত। সুদীপ বাবুর কাঁধে ভর দিয়ে ত্রিপুরায় বহু দিনের বাম জামান শেষ করে বিজেপি। কিন্তু সেই সুদীপ বাবুকে বাদ দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী করে বিপ্লব দেবকে। তারপর থেকে সুদীপ বর্মনকে আরো কোণঠাসা করে দিয়েছেন বিপ্লব দেব। মন্ত্রিত্ব ও নিয়ে নেওয়া হয় তার থেকে। একপ্রকার বাধ্য হয়ে বিজেপি থেকে নিজের দূরত্ব তৈরি করেন তিনি।

 

 

 

এর আগে সুদীপ রায় বর্মন কংগ্রেসে ছিলেন। বহু বছর ত্রিপুরা বিধানসভায় বিরোধী নেতা ছিলেন। ২০১৬ সালে মুকুলের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসে আসেন। তার পর মুকুল রায় বিজেপি–তে যোগ দিলে তিনিও যোগ দেন। কিন্তু বিজেপি–তে যোগ দিলেও তাঁর সেই আগের প্রভাব অনেকটাই কমতে থাকে। এবার মুকুল তৃণমূলে ফিরেছেন। তাই রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, তিনিও সেই পথ নিতে পারেন।

 

 

 

অনেকে আবার মনে করছেন, নিজের এক দলও গড়তে পারেন সুদীপ বাবু। সেক্ষত্রে তাঁকে সমর্থন করতে পারেন রাজ পরিবারের সদস্য প্রদ্যোত মাণিক্য দেববর্মা। যার দল ‘ট্রিপরা’ কিছুদিন আগেই স্থানীয় নির্বাচনে বিজেপিকে বড়সড় ধাক্কা দিয়েছে। অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেস আসন্ন লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে বিভিন্ন রাজ্যে নিজেদের সংগঠন জোরদার করতে তৎপর হয়েছে। আবার ত্রিপুরায় বর্তমানে তৃণমূলের রাজনৈতিক গ্রহণযোগ্যতা বাড়ছে দ্রুত গতিতে। সেই দিক এবার সুদীপ বর্মনকে নিয়ে নিজেদের রাজনৈতিক যাত্রায় গতি আনতে চাইবে তৃণমূল নেতৃত্ব। তবে সুদীপ রায় বর্মণের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ কোন খাতে প্রবাহিত হতে চলেছে তা কেবল সময়ই বলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *