প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ককে প্রার্থী! ‘আমরা চিনি না’, বলে প্রবল বিক্ষোভ বিজেপি কর্মীদের

নিউজ ডেস্ক : বর্তমানে ঘোরতর প্রার্থী সংকটে ভোগা তথাকথিত বিশ্বের বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বিজেপি এখনো পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার ২৯৪টি আসনের প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করে উঠতে পারেনি। তবে ধাপে ধাপে যে কয়টি আসনের প্রার্থী এখনো পর্যন্ত মনোনীত করা হয়েছে দলটির তরফ থেকে তার প্রায় প্রত্যেকটি থেকে শুরু হয়েছে বিজেপির অভ্যন্তরীণ গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। আরে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের মূলে রয়েছে আদি বিজেপি এবং নব্য তৃণমূল কংগ্রেস এবং বাম দলগুলো ছেড়ে আসা নেতাকর্মীদের নয়া বিজেপির মধ্যেকার দ্বন্দ্ব। এবার এমনই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করল উত্তর ২৪ পরগনার জগদ্দল বিধানসভা আসনের বিজেপি প্রার্থীকে কেন্দ্র করে।

উত্তর ২৪ পরগনার জগদ্দল বিধানসভা আসনের জন্য বিজেপি মনোনীত প্রার্থী হল প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক অরিন্দম ভট্টাচার্য। যিনি একসময় শান্তিপুর থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক ছিলেন। গত জানুয়ারি মাসে তিনি তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন এবং এখন তিনি বিজেপির প্রার্থী জগদল থেকে, যা মনেপ্রাণে মেনে নিতে পারছেন না এলাকার বিজেপি কর্মীরা। প্রার্থী ঘোষণা হতে শ্যামনগরে বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা নিজেদেরই পার্টি অফিসের ব্যানার হেডিং এবং পতাকা খুলে ফেলেন এবং সেখানে ভাঙচুর শুরু হয়। অবরোধ করা হয় কল্যাণী হাইওয়ে, সেখানে আগুন ধরিয়ে দেয় বিজেপি কর্মীরা।

বিজেপি কর্মীদের অভিযোগ এই এলাকায় তেমন কেউই অরিন্দম ভট্টাচার্য কে জানে না। বিজেপির সঙ্গে বহুদিন ধরেই এলাকায় নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন অরুণ ব্রম্ভ। এলাকার মানুষের প্রত্যাশা ছিল তিনি এখানকার বিজেপি প্রার্থী হিসাবে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন কিন্তু তাকে বঞ্চিত করা হয়েছে। যার ফলে এলাকার বিজেপি কর্মীরা নিজেরাই বঞ্চিত বলে মনে করছে নিজেদেরকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *