Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

ঈদের দিনেও প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স, প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা

NBTV ONLINE DESK

NBTV ONLINE DESK

f144888a-9664-44b0-9588-ec70f4de7981

যাদবপুরের পর এবার প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়। তবে যাদবপুরকে ছাপিয়ে গিয়েছে রাজ্যের এই নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়। যাদবপুর ঈদের আগের দিন ও পরেরদিন পরীক্ষা রেখেছিল। আর প্রেসিডেন্সি ঈদের দিনেই রেখেছে কনফারেন্স। আর এতেও ক্ষিপ্ত শিক্ষার্থীরা।

প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগ কন্ডেন্সড ম্যাটার ফিজিক্সের কনফারেন্স করছে আগামী ৩-৪ মে। ৩ তারিখ ঈদ উল ফিতর। কি? বিশ্বাস হচ্ছে না? ওপরের পোস্টারটা দেখুন। প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে নেওয়া। আইআইটি বোম্বের গবেষক ড. আসিফ আকরাম নিজেও এই প্রোগ্রামের জন্য রেজিষ্টার করেছেন। তার কাছে প্রমাণও আছে। তার প্রশ্ন হলো একটা জাতীয় ছুটির দিনে (National Holiday) কিভাবে এই অনুষ্ঠান রাখা হলো? যারা ঈদ পালন করবে তারা কি এই সুন্দর কনফারেন্সে যোগদান থেকে বঞ্চিত হবে না। প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের এরকম ঈদের দিনে কনফারেন্স রাখার যৌক্তিকতা কি? বিশিষ্ট সমাজকর্মী জান্নাতুল ফেরদৌস এর বিরুদ্ধে তীব্র ধিক্কার জানিয়ে বলেছেন, আমাদের তথা মুসলমানদের উৎসব ঈদ উপলক্ষে অন্তত পক্ষে তিন দিন ছুটি সরকারিভাবে ঘোষণা করা হলে এমনভাবে রাজ্যের কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরীক্ষা, কনফারেন্স ইত্যাদি সম্পর্কীত কোনো কিছু এই সময়ে রাখতে পারবে না। সমস্ত ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলছি সবধর্মের ধর্মীয় ঐতিহ্য অনুষ্ঠানে ছুটির ক্ষেত্রে এমন কোনো পরিস্থিতি আসে না। শুধু মাত্র আমাদের মুসলমানদের ঈদের সময় এমন ঘটনা নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরীক্ষা, কনফারেন্স ইন্টারভিউ এর দিন রাখা হচ্ছে। আমার প্রশ্ন এই যে এইভাবে একটা অংশ অর্থাৎ মুসলমানদের ধর্মীয় ভাবাবেগকে পেছন থেকে আঘাত করা কেন হচ্ছে?? এই বিষয়ে বর্তমান সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমাদের বছরে মাত্র কয়েকটা ধর্মীয় উৎসব তাই এক্ষেত্রে দুই ঈদে তিন দিন ছুটি সরকারিভাবে ঘোষণা করা যুক্তিসঙ্গত বলে মনে করি। আশা করি আমাদের বর্তমান সরকার এই বিষয়ে সদর্থক ভূমিকা পালন করবেন বলে।

সম্পর্কিত খবর