Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ সিনেমাটি হিন্দুত্ববাদীদের এক মিথ্যা প্রচার

NBTV ONLINE DESK

NBTV ONLINE DESK

বিবেক অগ্নিহোত্রী, সিনেমার প্রযোজক
বিবেক অগ্নিহোত্রী, সিনেমার প্রযোজক

এনবিটিভি ডেস্কঃ চলতি মাসে ১১ মার্চে ‘কাশ্মীর ফাইলস’ নামে একটি চলচ্চিত্র ভারত জুড়ে সাড়া ফেলেছে। এই চলচিত্রকে ঘিরে ঝড় তুলেছে দেশে। এই সিনেমাটিতে ৯০-এর দশকে দাঙ্গার সময় কাশ্মীরি পণ্ডিতদের দুর্দশার ‘হাইলাইট’ করা হয়েছে। ভারতের রাজনীতিতে কাশ্মীরী পণ্ডিতদের জিকির করা হলেও একই সময়ে মুসলিম নিধনের চিত্র ফেকাসে করে দেখান হয়েছে।

‘কাশ্মীর ফাইলস’ মুক্তির পরপরই ছবিটি শিরোনাম হতে শুরু করে দিয়েছে। যদিও অনেক হিন্দুত্ববাদীরা এটিকে উপত্যকার সংঘাতের একটি বাস্তব উপস্থাপনা বলে অভিহিত করেছেন। ফিল্মটি পণ্ডিতদের দুর্দশার কথা বিবেচনা করলেও, এখানে কাশ্মীরি মুসলমানদের কষ্টের যে করুণ চিত্র তা আড়াল করা হয়েছে। সেই সময় মুসলিম নিধনের চিত্রটা দেখান হয়নি।

  কাশ্মীর উপত্যকায় প্রায় ৬৫০ জন হিন্দু পণ্ডিতকে হত্যার কথা বললেও আদউ তা সত্য নয় বলে প্রমানিত হয়েছে বিভিন্ন তথ্যর মাধ্যমে।

কিন্তু এই ৬৫০ সংখ্যা সঠিক নয়, তা এক RTI এর মাধ্যমে উঠে আসে। হরিয়ানার সমলখার কর্মী পিপি কাপুরের দায়ের করা ২০২১ সালের আরটিআই অনুসারে সংখ্যাটি অনেক কম ছিল ছিল বলে জানা যায়। RTI বলা হয়েছে যে, ১৯৯০ সালে জঙ্গিবাদ হামলায় ৮৯ জন কাশ্মীরি পণ্ডিত নিহত হয়েছে।

RTI

কাশ্মীরি পণ্ডিতদের দুর্দশা এখন যদি না কাটে তাহলে সেটা কার দায়? কাশ্মীরও এখন বিজেপির দখলে। তাহলে এত বছর ধরে কেন্দ্রের বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠ বিজেপি সরকার কি করছিল? ৩৭০ ধারা অবলুপ্ত করে দিয়েছে। এসব বাসি গল্প আর কতদিন খাওয়ানো চলবে সাধারণ মানুষের? এটা হিন্দুত্ববাদীদের প্রোপাগান্ডা ছাড়া কিছই নয় বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞ মহল। বিশেষ করে ভোটের সময়েই কাশ্মীরি পণ্ডিতদের কথা মনে পড়ে সঙ্ঘ পরিবারের সদস্যদের।

 অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করেন এই সিনেমাটি-তে শুধুমাত্র বিজেপির সমর্থকদের জন্যই তৈরি করেছে। কারণ বিজেপির কট্টর সমর্থক বিবেক অগ্নিহোত্রী এই সিনেমার প্রযোজক। দ্য কাশ্মীর ফাইলস অভিনয় করেছেন বিজেপির  কট্টর সমর্থক অনুপম খের, মিঠুন চক্রবর্তী দর্শন কুমার এবং পল্লবী জোশী।

 শুধু তাই নয়, বেশ কয়েকটি বিজেপি রাজ্য দ্য কাশ্মীর ফাইলস সিনেমার জন্য করমুক্ত স্ক্রিনিং ঘোষণা করেছে। কর্ণাটকের স্পিকার আজ মঙ্গলবার ঘোষণা করেছেন যে, উভয় হাউসের সদস্যরা আগামীকাল টকিজে বিনামূল্যে ছবিটি দেখার সুযোগ পাবেন। এমনকি মোদী সরকারের কাছ থেকে দিল্লির লাল কেল্লার ম্যানেজ করা ডালমিয়া গ্রুপ তাদের কর্মীদের বিনামূল্যে ফিল্ম দেখার প্রস্তাবও দিয়েছে। এই সমস্ত উদাহরণ হল বিজেপি সরকার মিথ্যা ও বানোয়াট সিনেমাটি জনগণের কাছে পৌঁছে দেওয়ার বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছে।

সম্পর্কিত খবর