বদরপুরের এক সভায় আজমলের দাবী উনারা বরাকে ১২ টি আসন পাবেন

এনবিটিভি ডেস্ক: ভাঙ্গায় এআইইউডিএফ দলের বিশাল কর্মী সভা উপস্থিত দলের সুপ্রীমো মাওলানা বদরুদ্দিন আজমল বললেন, সভায় আসার আগে শুনেছিলাম এখানে অনেক গ্রুপ থাকবে । তারা পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে আওয়াজ তুলবেন। সভায় এসে দেখলাম কোন গ্রুপ নেই ।বিশাল সভায় একই আওয়াজ শুধু আব্দুল আজিজ জিন্দাবাদ। গত বিধান সভা নির্বাচনে বদরপুর আসনে আব্দুল আজিজ সামান্য ভোটে হেরেছেন। কিন্তু আপনাদের সঙ্গ ছাড়েননি। আপনারাই বলছেন আব্দুল আজিজ হেরেও গত পাঁচ বছর আপনাদের সুখে দুঃখে সাথে ছিলেন । আগামীতে ও আপনারা তাকে চাইছেন।আমি আপনাদের দাবী মেনে নিলাম। প্রার্থী তিনি হবেন। জয়ী করার দায়ীত্ব আপনাদের। এই মন্তব্য করেন মাওলানা বদরুদ্দিন আজমল।

এতে স্পষ্ট আগামী বিধান সভা নির্বাচনে বদরপুর আসনে এআইইউডিএফ প্রার্থী হচ্ছেন আব্দুল আজিজ। মাওলানা বদরুদ্দিন আজমল এও জানান, মহাজোট নিয়ে দলের জেলা স্তরের কোন কর্মকর্তা কোন মন্তব্য করতে পারবেন না।যা মন্তব্য করার কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বলবেন।মহাজোটের সিদ্ধান্ত ডিসেম্বরের শেষ দিকে হতে পারে। বিগত দিনেও মহাজোট নিয়ে এআইইউডিএফের সাথে অনেক বেইমানি করা হয়েছে। এআইইউডিএফ এখন মহাজোটের পক্ষে তবে আগ বাড়িয়ে নয়। প্রসঙ্গ ত্রুমে মাওলানা বদরুদ্দিন বলেন বদরপুরের বিধায়ক জামাল উদ্দিন অসুস্থ এক বছর ও বাঁচবেন কিনা। সম্পর্কে উনি বেয়াই। তাই সুযোগ দেয়ার অনুরোধ করছেন। তিনি বলেন বরাক উপত্যকার পনেরোটি আসন এবার মহাজোটের দখলে আসবে। নূন্যতম বারোটি আসন তো মহাজোটের দখলে থাকবেই। আর বিজেপি সরকারের মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার মতি ভ্রম ঘটেছে মহাজোটের কথা শুনে। তাই মিয়া মিউজিয়াম লুঙ্গি তকি, আজিজ খান, পাকিস্তান ইত্যাদি নিয়ে আবোল তাবোল মন্তব্য করতে শুরু করেছেন। তিনি রাজ্য ও কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন। এন আর সি, সিএএ, নাগরিকত্ব তিব্র সমালোচনা করেন। এন আর সি, সিএএ, নাগরিকত্ব বিল, মহিলার অধিকার , ইত্যাদি প্রসঙ্গ নিয়েও সরকারকে তূলধোনো করেন। সাথে দলীয় কর্মী সমর্থকদের দলের আদর্শ ও নীতি মেনে চলার আহ্বান জানান। বলেন শিক্ষা ছাড়া কোন জাতি এগোতে পারে না। তাই মুসলিম সমাজকে শিক্ষা ক্ষেত্রে এগোতে হবে। বর্তমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগে অন্যন্য জাতি চাঁদে পাডি দেওয়ার স্বপ্ন দেখছে। আর মুসলিম সমাজ নিজেদের মধ্যে মারামারি করে মরছে। বলেন সরকারের পেছনে ছুটতে হবে না।আজমল ফাউণ্ডেশনের স্কিম নিয়ে কাজ করতে পারেন এক জন বিধায়ক। হিমন্ত বিশ্ব সাধারণ মানুষ কে বোকা বানানোর জন্য দীর্ঘ ম্যাদি প্রকল্প তৈরী করেন। কিন্তু কোন প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়না। মাওলানা বদরুদ্দিন বলেন চোরের দশ দিন সাউকারের একদিন। এই পরিস্থিতিতে পডবে বিজেপি সরকার। বলেন নিট ছাড়াও উন্নত মানের আই এস, আই পি এস, ইঞ্জিনীয়ারিং শিক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে আজমল ফাউন্ডেশনে।

অন্যান্য বক্তারা বলেন বিজেপি সমাজ ব্যবস্থাকে বিভক্ত করার রাজনীতিতে ব্যাস্ত । তারা জানান বিগত নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী আব্দুল আজিজ মাত্র দু হাজার ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন। ২০২১ এর নির্বাচনে আব্দুল আজিজ ষোল হাজার ভোটের ব্যবধানে জয়ী হবেন। তারা সাধারণ মানুষের কল্যানে কি কি প্রকল্প নিয়ে জেলা শাসক কার্য্যালয়ে দূর্নীতি চলছে, সে সম্পর্কে খোজ রাখতে দলীয় কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।সভায় সাংগঠনিক বিষয় বস্তু সহ রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের বিভিন্ন ব্যর্থতা ও চক্রান্ত নিয়ে গুরু গম্ভীর বক্তব্য রাখেন দলের প্রশাসনিক সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম। এছাডাও দলের আদর্শ নীতি রাজ্য ও কেন্দ্র সরকারের সংখ্যালঘু বিরোধী নীতির বিরুদ্ধে বক্তব্য রাখেন প্রাক্তন সাংসদ রাধেশ্যাম বিশ্বাস, বিধায়ক সুজাম উদ্দিন লস্কর, নিজাম উদ্দিন চৌধুরি, আনোয়ার হোসেন লস্কর আব্দুল আজিজ খান ছাড়াও অন্যান্যরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *