বিজেপিকে তাড়িয়ে দেশ বাঁচাবেন দিদি, কৃষকদের মনের কথা মমতাকে বলেন রাকেশ টিকাইত

নিউজ ডেস্ক :‌ বিধানসভা নির্বাচনের আগে থেকেই বঙ্গে কৃষক সম্প্রদায়ের নেতাদের আনাগোনা দেখা গিয়েছিল। মূলত কৃষক স্বার্থ বিরোধী বিজেপিকে হারাতেই সেই সমর্থন দিয়েছিলেন কৃষক নেতারা। বহু জায়গায় দিদির সমর্থনে সভা সমাবেশ ও করেন তারা হার লাভ কোনো না কোনো ভাবে হয়েছে মমতা ব্রিগেডের। তাই ভোটের পরও দিদিকে আসছে দিনগুলোতে বিজেপির বিরুদ্ধে নিজেদের সমর্থনের অঙ্গীকার দেখাতে আসতে দেখা গেল কৃষক নেতা রাকেশ টিকাইতকে। নবান্নে এদিন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে দেখা করে তৃতীয়বারের জন্য বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা জানান এই প্রভাবশালী এবং জনপ্রিয় কৃষক নেতা। এ সময় তিনি বলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ারও ক্ষমতা রাখেন মমতা ব্যানার্জি। কৃষক আন্দোলনের বিষয়েও বৈঠক হয় মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে। রাকেশ টিকাইত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির কাছে আর্জি জানান, কৃষক আন্দোলনকে যেসব মুখ্যমন্ত্রী সমর্থন করছেন তাঁদের একজোট করুন আপনি। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে বিরোধী দলের মুখ্যমন্ত্রীরা রয়েছেন। সবাই একজোট হয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে লড়াই হোক। দিল্লিতে নরেন্দ্র মোদি সরকারকে উৎখাত করতে মমতা ব্যানার্জিকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে অনুরোধ করেন তিনি।’‌ রাকেশ টিকাইত আরও বলেন, ‘‌মমতা দিদি বিজেপিকে হারিয়ে বাংলাকে বাঁচিয়েছে, এবার বিজেপিকে কেন্দ্রের ক্ষমতা থেকে তাড়িয়ে দেশকে বাঁচাবেন দিদি।’‌

 

 

 

এ প্রসঙ্গে মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘‌অবিলম্বে ৩ কৃষি আইন বাতিল করুক কেন্দ্র। দিল্লির কৃষক আন্দোলনের পাশে রয়েছি। তৃণমূলের সাংসদদের আমি আন্দোলনের পাশে থাকতেও পাঠিয়েছিলাম। কৃষকদের দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলনকে তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থন দেবে। গায়ের জোরে কৃষি বিল পাশ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। কৃষকদের স্বার্থের কথা ভাবে না কেন্দ্র। গায়ের জোরে কৃষকদের জমি দখল করতে চাইছে কেন্দ্র, আর আমরা সেটার বিপক্ষে।’‌

 

 

 

এর পাশাপাশি মমতা ব্যানার্জি আরও বলেন, ‘‌দেশকে বাঁচাতে গেলে সমস্ত বিরোধী দলকে এককাট্টা হতে হবে। দেশের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে নরেন্দ্র মোদিকে সরাতেই হবে। কেন্দ্রের কোভিড নীতি এখনও স্পষ্ট নয়। বিজেপি তো খালি কেন্দ্রীয় এজেন্সি দিয়ে ভয় দেখায়। দেশজুড়ে বিরোধীদের কণ্ঠস্বর রোধ করতে চাইছে কেন্দ্র। কিন্তু জানিয়ে রাখি আমাদের মুখ বন্ধ করা যাবে না। আন্দোলন চলবে।’‌ রাজনৈতিক মহলের মতে, মমতাকে সামনে রেখে বিরোধী ঐক্যের মঞ্চ তৈরিতে ব্যস্ত রাকেশ টিকাইত। এ ব্যাপারে বিভিন্ন বিরোধী রাজনৈতিক দল ও তাদের সমর্থন দিয়েছেন। আর কৃষক নেতা তাদের সবাইকে একত্রিত করতে গুরুত্তপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন। বেশ কিছু রাজ্যে কৃষকদের ভোট আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে গুরুত্ব পূর্ণ রাখতে চলেছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। সেই দিক থেকে মমতা এবং রাকেশ টিকাইতের এই জুটি বিজেপিকে যে বেগ দেবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *