Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

জালে পড়েছে বড় মাছ, চুনোপুটির হিসেবে পরে

NBTV ONLINE DESK

NBTV ONLINE DESK

Untitled design (3)

~হাফিজুর রহমান, আসোসিয়েট এডিটর, এনবিটিভি

বঙ্কিমচন্দ্রের  কমলাকান্তের গল্পের একটি লাইনে ছিল, আইন হচ্ছে তামাশা। ধনিরা পয়সা খরচ করে সে তামাশা দেখতে পারে। অনেকদিন পর আগে পড়া লাইনটি মনে এলো। কাল দুটি ইংরেজি খবরের কাগজের বিজনেস নিউজ পড়ে। খবরের সারমর্ম সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ বোর্ড অফ ইন্ডিয়া আদানি গ্রুপকে এনডিটিভির আরো শেয়ার কেনার অনুমতি দিয়েছে। দু বছর আগে যে শেয়ারের দাম ছিল 72 টাকা তার দাম  এখন 6 থেকে 9 গুন বেড়েছে। বাজারে  অস্বাভাবিক বৃদ্ধি হলে সেবি এনকোয়ারি করে, বেআইনী কিছু পেলে ফাইন করতে পারে, দুর্নীতিকারি কোম্পানিকে ব্লাকলিস্ট করতে পারে। এক্ষেত্রে কিছুই হয়নি বরং উল্টো হয়েছে। সেবির নির্দেশে আদানি গোষ্ঠী এনডিটিভির শেয়ার কিনতে পারে। সোজা কথায় বেয়াড়া এনডিটিভির গলায় শিকল পরানো হোলো। আদানি গ্রুপের হাতে ছিল ২৬%, এখন সেবীর কল্যাণে আরো ২৬% শেয়ার কিনে এনডিটিভির দখল নেবে। 

টেকনিকাল কথা ছেড়ে একটু সহজ ভাবে বলবার চেষ্টা করছি। দেশে গনতন্ত্র বলে কিছু নেই। নামে গণতন্ত্র হলেও দেশজুড়ে চলছে অলিখিত ইমারজেন্সি। দেশের শাসকদের ভাষায় কথা বলতে হবে। দেশের গণতন্ত্রের মুখে নুড়ো জ্বেলে দিয়ে স্বাধীন নিউজ হাউসগুলি শাসক দলের মাউথ পিস হয়েছে। ভয় বা চাঁদির জুতো মেরে বশ করা হয়েছে তাদের। ভালবেসে জনগন এদের নাম দিয়েছে গদি মিডিয়া।  এদের কাজ হলো শাসক দলের শানে কাসিদা পড়া, বা গুনগান করা। NDTV বা WIRE এর মত চ্যানেল শাসক দলের চোখে চোখ রেখে প্রশ্ন করেছে। তাই এদের মুখ বন্ধ করতে ইডি লেলিয়ে, টাক্স ফাঁকির মিথ্যে অভিযোগে নাজেহাল করতে হবে।  আমন্ত্রণে বিদেশ গেলে শেষ মুহূর্তে এয়ারপোর্টে  বাজে অজুহাতে আটক করে বাইরে যাওয়া আটকাতে হবে। এককথায় পদে পদে বাধা দিতে হবে যাতে এরা খবর প্রচার করতে  বাধা পায়। আসল খবর আম জনতার কাছে পৌছে  না দিতে পারে।

চৌকিদার যখন গুজরাটের মুর্খমন্ত্রী। মূর্খ নয় মুখ্যমন্ত্রী, তখন প্রেস মিটে গুজরাট গণহত্যার জন্য প্রশ্ন তুলেছিলেন NDTV র প্রধান প্রণয় রয়। উত্তর দেবার বদলে পালিয়ে গেছিলো সেদিনের রাজ্য প্রধান, আজকের দেশসেবক। wire এর করন থাপারের প্রশ্ন সামলাতে না পেরে ইন্টারভিউ এর মাঝে পিঠটান দিয়েছিল মন কি ভাট বকা বিশ্বগুরু। নেহরুকে গালি দিয়ে তার সময়ের একের পর এক লাভজনক সংস্থা জলের দামে বেচে দিচ্ছে বিশ্বগুরু। আর কিনছে দুই গুজূ  বানিয়া। দিনের পর দিন এসব প্রশ্নের খোঁচায় বিব্রত বেচারাম আর কেনারামরা ফন্দি আটে। বেনামে প্রথমে26% অংশ কিনে নেবে, মালিক প্রণয় আর রাধিকা রয়ের হাতে মাত্র 30%। কাজেই এবার NDTV দখল নিলে ওদের বিরুদ্ধে বলার কেউ থাকবেনা। গোটা দেশ গদিমিডিয়ার মতো রোবট হবে। সোশ্যাল মিডিয়ার কিছু পশ্চাতপক্ক   লম্ফোঝম্পো করছে, তাদের জব্দ  করতে বিল আনতে চলেছে সরকার। চতুর্থস্তম্ভ  কি বস্তু, খায় না মাথায় দেয়,কে খবর রাখে। দেশের শাসকদের ওয়ান  পয়েন্ট  এজেন্ডা  এলো মেলো করে দে মা, লুটে পুটে খাই। 

আপনার মতামত প্রদান করুন!

সর্বাধিক পঠিত খবর

সর্বশেষ খবর